শান্তিরবাজার পৌর পারিষদ

শান্তিরবাজার নগর পঞ্চায়েত ২০০৯ সালে ৬ জন মনোনীত সদস্যের সঙ্গে যাত্রা শুরু করে এবং ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার মানের সেবা প্রদান করে।২০১০ সালের ডিসেম্বরে শান্তিরবাজার নগর পঞ্চায়েতের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । পরে, ৩ রা  জুলাই , ২০১৫ সালে শান্তিরবাজার নগর পঞ্চায়েতটি শান্তিরবাজার পৌর পারিষদে উন্নীত করা হয়েছিল পৌর পারিষদে ওয়ার্ডের সংখ্যা বেড়ে ১১ থেকে ১৩ হয়েছিল।

শান্তিরবাজার পৌর পরিষদ ২৩.৩১ ডিগ্রী উত্তর অক্ষাংশ ও ৯১.৫৬ ডিগ্রী পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত।শান্তিরবাজার পৌর পরিষদের মোট এলাকা ২৬.৯৪ বর্গ কিমি। জাতীয় সড়ক নং ০৮ এই শহরে হৃদয় মাধ্যমে প্রেরণ করা হয়।শান্তিরবাজার এলাকা পৌর পরিষদ বেশিরভাগই, পাহাড়ী জমি উত্কলিত দ্বারা আচ্ছাদিত করা হয়, যদিও কিছু প্লেইন জমি এখানে সেখানে আছে। শহরটির প্রধান বাণিজ্যিক এলাকা নিম্নগামী এলাকায় তুলনামূলকভাবে অবস্থিত, অর্থাৎ লোয়াং নদ নামে একটি নদীর তীরে অবস্থিত।

শান্তিরবাজার শহর প্রায়  রাজধানী আগরতলা থেকে ৮৫ কিমি দূরত্বে অবস্থিত। নিকটতম রেলওয়ে স্টেশন ০৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। শহর থেকে নিকটতম জেলা বিলোনীয়া ১৯ কিমি দূরত্বে  রয়েছে।

চেয়ারম্যান হল শান্তিরবাজার পৌর পরিষদের প্রধান তার কাজ তাকে সাহায্য করার জন্য, চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল নামে ৪ টি সদস্য গঠিত একটি দল আছে। এছাড়া ৬ স্থায়ী কমিটি যা মিউনিসিপাল প্রশাসন বিভিন্ন দিক দেখাশোনা হয়। এর পাশাপাশি ১৩ টি ওয়ার্ড কমিটি এবং এই কমিটিগুলি সময়মত সময়ে তাদের মূল্যবান পরামর্শগুলি রেন্ডার করে উন্নয়নমূলক কর্মসূচি বাস্তবায়নে পৌর কাউন্সিলকে সহায়তা করে। এর পাশাপাশি, একটি চেই চ এক্সিকিউটিভ অফিসার আছেন, যিনি প্রতিদিনের তত্ত্বাবধানে কর্মচারীদের সহায়তায় পৌর কাউন্সিলের প্রশাসনের তত্ত্বাবধান করেন।

শান্তিরবাজারের মোট জনসংখ্যা ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী ১১,৯২১ ছিল। বর্তমানে শান্তিরবাজারের জনসংখ্যা ১৫,৬৪৭। মোট ঘর শান্তিরবাজারের অধীনে  ৩৫২৯ টি। মোট জনসংখ্যার মধ্যে ১৫,৬৪৭ , সাধারণ -৪,৯৫৩, এসসি -৫,৮১৪, এসটি-১০০৫, ওবিসি-৩,৭৬৪, আরএম-১১১। তার মোট জনসংখ্যার মধ্যে, ১০.৭% স্ব নিযুক্ত, ১৮.৮৩% বেতনভোগী, ৩৯.০২% বেতন উপার্জনকারী এবং ৩১.৪৪% অন্যান্য পেশা অনুশীলন ।শান্তিরবাজারের মোট সাক্ষরতার হার পৌর পরিষদ ৯৫.০০%।